State Times Bangladesh

দ্বা’য়ীদের পথ চলা মসৃণ হোক, হোক নিরাপদ

প্রকাশিত: ১৩:০৭, ২৪ জুন ২০২১

আপডেট: ১৩:১০, ২৪ জুন ২০২১

দ্বা’য়ীদের পথ চলা মসৃণ হোক, হোক নিরাপদ

কুরআনের একজন দ্বায়ী দল-মত-জাতি-ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সবার কাছে কুরআনের দাওয়াত পৌঁছাবেন। দ্বায়ীর কাছে কোনো ভেদাভেদ নেই। যিনি এই ভেদাভেদ করবেন, তিনি এই মহান দায়িত্বের মর্যাদা হানি করছেন।

একজন পটেনশিয়াল দ্বায়ীর দাওয়াতি এরিয়া গোটা বিশ্ব। নারী-পুরুষ, যুবক-বৃদ্ধ, মুসলিম-অমুসলিম, আস্তিক-নাস্তিক যে কেউ তার অডিয়েন্স হতে পারে। সবার সাথেই তার সুসম্পর্ক থাকা উচিত। যত বেশি মানুষকে আমরা কুরআনের কথা শুনাতে পারব এবং ইসলামের সৌন্দর্যের প্রতি আকৃষ্ট করতে পারবতত বেশি মানুষ সত্যকে চিনতে পারবে। সঠিক জীবন দর্শন সম্পর্কে জানতে পারবে।

একজন ডাক্তার যেমন সবাইকে চিকিৎসা দেন, ঠিক তেমনি একজন দ্বায়ীও কুরআনের আলো দিয়ে সবাইকে আলোকিত করবেন, পরম মমতায় সবাইকে আগলে রাখবেন। তাই, দ্বায়ীদের দলীয় সংকীর্ণতায় আবদ্ধ রাখা বা তাদের কোনো দলের ট্যাগ লাগানো অনুচিত। এতে দাওয়াতি অঙ্গনে তার সার্বজনীনতা প্রশ্নবিদ্ধ হয়।

একজন দ্বায়ী হবে ইনক্লুসিভ, একোমডেটিভ এবং আউটগোইং। তার কাজের ক্ষেত্র হবে সু-প্রশস্ত, যাতে তিনি নিজের সবটুকু উজাড় করে দিয়ে বাণী বাহকের কাজ করে যেতে পারেন, কল্যাণের বাণী জাতির সামনে উপস্থাপন করতে পারেন। প্রাণবন্ত মনে কথা বলতে পারেন এবং কনস্ট্রাকটিভলি সবার কাছে ইসলামের সুমহান শাশ্বত বাণী স্মোথলি তুলে ধরতে পারেন।

মিম্বারে কিংবা মঞ্চে, অনলাইনে কিংবা অফলাইনে, কী বোর্ডে কিংবা ক্যামেরার সামনেসবখানে একজন দ্বায়ীর অবাধ বিচরণ নিশ্চিত করা অপরিহার্য।

সংকীর্ণ মানসিকতা, দলান্ধতা ও মতান্ধতা দ্বায়ীদের কাজের ক্ষেত্রকে সংকুচিত করে এবং তাদের কাজের আউটপুটও অনেকাংশে কমিয়ে দেয়। অহিংসা, উদারতা এবং সকলের প্রতি হিতাকাঙক্ষামূলক মানসিকতাএকজন দ্বায়ীকে নিয়ে যেতে পারে অনন্য উচ্চতায়, যা কি না হতে পারে লাখো মানুষের হেদায়েতের মাধ্যম এবং গোটা জাতি পূনর্গঠনের উপলক্ষ।

হাল আমলে কোনো কোনো দ্বায়ী নিঁখোজ হচ্ছেন, অনেকে হয়রানির শিকার হচ্ছেন, কারও দাওয়াতি অভিযাত্রা আটকে দেওয়া হচ্ছে এবং কাউকে পরিকল্পিতভাবে সমালোচিত করা হচ্ছে। উন্মুক্ত পৃথিবী যেন দিনকে দিন কুরআনের দ্বায়ীদের জন্য সংকুচিত হয়ে উঠছে, যা মোটেও কাম্য নয়। যে দেশে গুণীজনদের কদর করা হয় না, সে দেশে গুণীজন জন্মায় না।

তাই, কুরআনের দ্বায়ীদের বলতে দিন। তাদের থামিয়ে না দিয়ে, সমর্থন দিন। তাদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করুন।

সম্পর্কিত বিষয়: