State Times Bangladesh

মসজিদের চাঁদার টাকা নিয়ে সংঘর্ষ, নিহত ১

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১০:৫৪, ১৬ এপ্রিল ২০২১

আপডেট: ১০:৫৫, ১৬ এপ্রিল ২০২১

মসজিদের চাঁদার টাকা নিয়ে সংঘর্ষ, নিহত ১

রংপুরের কাউনিয়া উপজেলায় মসজিদের চাঁদার টাকা আদায় নিয়ে দুপক্ষের সংঘর্ষে একজন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন তিনজন। গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে উপজেলার হারাগাছ পৌরসভার ৪ নম্বর ওয়ার্ডের চেয়ারম্যানটারী সারাই হরিণটারী জুম্মাপাড় জামে মসজিদের কাছে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। পুলিশ চারজনকে আটক করেছে।

নিহত নাজমুল হক নজু (৪৫) সারাই জুম্মাপাড় এলাকার বাসিন্দা। তিনি স্থানীয় একটি বিড়ির কারখানায় চাকরি করতেন। নাজমুলের বাড়ি সৎবাজার এলাকায় হলেও তিনি চেয়ারম্যানটারী গ্রামে তার শ্বশুরবাড়িতে থাকতেন।

প্রতক্ষ্যদর্শীরা জানান, দীর্ঘদিন ধরে চেয়ারম্যানটারি জুম্মাপাড় জামে মসজিদের উন্নয়নের লক্ষ্যে নতুন কমিটির সদস্যরা মুসল্লিসহ স্থানীয়দের কাছ থেকে চাঁদা আদায় করছিলেন। এর মধ্যে চাঁদার শতকরা ২৫ শতাংশ টাকা আদায়কারীরা নিতেন। এই টাকা নেওয়াকে কেন্দ্র করে বৃহস্পতিবার জোহরের নামাজের পর নতুন কমিটির সদস্য আব্দুল বারী ভেল্লুর সঙ্গে পুরাতন কমিটির সদস্য নুর আলমের ভাই দয়াল মিয়ার বাগবিতণ্ডা হয়। পরে মাগরিবের নামাজ শেষে আবারও দুপক্ষের কথা কাটাকাটি হয়। মসজিদ থেকে বাড়িতে ফেরার পথে ভেল্লুর দুই ছেলে রিপন ও জীবনসহ কয়েকজন মিলে দয়াল ও তার পক্ষের লোকজনের ওপর হামলা চালায়। এ নিয়ে উভয় পরিবারের লোকজন দেশীয় অস্ত্র ও লাঠিসোটা নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। সংঘর্ষে গুরুতর আহত হন নাজমুল হক। পরে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তিনি মারা যান।

ঘটনার পর পুলিশ ভেল্লু মিয়া, তার স্ত্রী স্বপ্না ও দুই ছেলে রিপন মিয়া এবং জীবন মিয়াকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করে। হারাগাছ থানার ওসি রেজাউল করিম এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

মসজিদ কমিটির সভাপতি মামুনুর রশিদ মামুন বলেন, কয়েক মাস ধরে মসজিদের চাঁদার টাকা আদায় করা হচ্ছে। কিন্তু সেই টাকা ব্যাংকে জমা করা হয়নি। এ নিয়ে চাঁদা আদায়কারীদের সঙ্গে পূর্বের কমিটির সদস্যদের মতপার্থক্য ছিল।