State Times Bangladesh

মাজহাব মানেই কি বিভক্তি?

প্রকাশিত: ১২:৫৬, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১

আপডেট: ১২:৫৮, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১

মাজহাব মানেই কি বিভক্তি?

আজ আমরা মাজহাব নিয়ে কথা বলব। যে তথ্যের গন্তব্য কুরআর ও সুন্নাহ, তাই হচ্ছে মাজহাব। আল্লাহর রাসুল (সা.) এর এক নির্দেশনায় সাহাবাদের মধ্যে একটি দল বিষয়টি বুঝল, আরেকদল ঠিক তার উল্টোটি। সব বিষয়ে হক কেবল মাত্র একটি, এটা নাও হতে পারে। কখনো কখনো একাধিক বিষয়ে হক হতে পারে।

মাজহাব আসলে ইসলামকে বিভক্ত করে না। বরং মাজহাব ইসলামকে অনেকগুলো ভাগ হওয়া থেকে বাঁচিয়েছে। আল্লাহ তায়ালার এটি একটি বিশেষ রহস্য বা কুদরত, যে তিনি চারটি মাজহাবের মাধ্যমে রাসুল (সা.) এর পক্ষ থেকে প্রমাণিত যত ধরনের আমল হতে পারে; তা ঘুরিয়ে ফিরিয়ে সারা বিশ্বে আমল করাচ্ছেন।

আপনার মাজহাবে হয়তো এ আমলটি নেই, কিন্তু অন্য মাজহাবে অত্যন্ত ভাবগাম্ভীর্যতার সঙ্গে, অত্যন্ত আদবের সঙ্গে রাসুল (সা.) এর আমলটি পালন করা হয়। রাসুল (সা.) থেকে প্রমাণিত কোনো আমলকে যদি আপনি ঠাট্টা করেন, অন্য কোনো আমল নিয়ে যদি কেউ ঠাট্টা করেন-তাহলে এটা কেমন যে রাসুলের আমল নিয়ে ঠাট্টা করার সামিল; যা অনেক বড় ধরনের একটি কবিরা গুনাহ।

নতুন নতুন অনেক ধরনের মাসআলা এসেছে, যা আগে ছিল না। তখন ইমাম আবু হানিফা (র.) তার ৪০ জন মেধাবি ছাত্র নিয়ে একটি দল গঠন করে ফিকহ অ্যাকাডেমি করেন। পরে তিনি ইরাকে হানাফি মাজহাব প্রতিষ্ঠা করেন। একই সময় মদিনাতে ইমাম মালেক (র.) তার মালেকি মাজহাব প্রতিষ্ঠা করেন। গোটা বিশ্বের মুসলিম রাষ্ট্রগুলোর দিকে খেয়াল করলে দেখা যাবে, সবাই এই চারটি মাজহাবের কোনো না কোনো মাজহাবকে গ্রহণ করেছেন।

এই মাজহাবকে নিয়ে আমরা কখনো যেন কোনো বাড়াবাড়ি না করি। বরং কুরআন সুন্নাহকে সহজভাবে মানার জন্য মাজহাবকে আমরা সহায়ককারী হিসেবে গ্রহণ করতে পারি।

মিজানুর রহমান আজহারী : ইসলামিক বক্তা