State Times Bangladesh

মুঠোফোনের অতিরিক্ত ব্যবহারের নানা ঝুঁকি

অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশিত: ১৩:১৯, ১৩ জুন ২০২১

মুঠোফোনের অতিরিক্ত ব্যবহারের নানা ঝুঁকি

প্রতীকী ছবি

মুঠোফোন যেমন দরকারি, ঠিক তেমনি এর অতিরিক্ত ব্যবহারে হতে পারে নানাবিধ সমস্যা। তাই মুঠোফোন ব্যবহারের বিষয়ে অবশ্যই সাবধান থাকবে হবে।

কিন্তু কোভিডের কারণে সব কাজ হচ্ছে বাড়ি থেকে। এ কারণে বেড়েছে মুঠোফোন ব্যবহার। বদলে যাওয়া জীবনে বেশির ভাগেরই এমন অভ্যাস হচ্ছে।

এতে করে দেখা যাচ্ছে, আঙুলের ব্যথায় চামচ ধরতেও কষ্ট হচ্ছে। আঙুল আর কব্জিতে আড়ষ্ট ভাব। এ সবই হলো অতিরিক্ত মুঠোফোন ব্যবহারের ফল।  

ইতিমধ্যেই এই সমস্যা নিয়ে অনেকে চিকিৎসকেদের দারস্থ হয়েছেন। অস্থি শল্যচিকিৎসক সুদীপ্ত ঘোষ জানালেন, মাত্রাতিরিক্ত মুঠোফোন ব্যবহারের অনেক ধরনের ক্ষতি হচ্ছে। বহু মানুষ বিভিন্ন ভঙ্গিতে বসে মুঠোফোন ব্যবহার করেন। ফলে পিঠ-কোমড়েও বহু সময়ে সমস্যা দেখা দিচ্ছে। কিন্তু সবচেয়ে বেশি ক্ষতি হচ্ছে হাতের। নাগাড়ে মুঠোফোন ব্যবহার করার ফলে পেশিতে টান পড়ে। রক্তচলাচলের গতিও কমে। এরই ফলে শরীরের বিভিন্ন অংশে ব্যথা বেদনার সূত্রপাত।

সুদীপ্ত ঘোষ বলেন, যে মুঠোফোন ব্যবহারের সময়ে নাগাড়ে ঘাড় নিচু করে ব্যবহার করা ঠিক নয়। টেবিলে চোখের সোজাসুজি রেখে মুঠোফোন ব্যবহার করলে ভালো হয়।

ব্রিটেনের হ্যান্ড ও এলবো সার্জন চিকিৎসক রজার পাওয়েল এক গবেষণাপত্রে জানিয়েছেন, দুই ঘণ্টার বেশি সময় ধরে মুঠোফোনে টেক্সট লিখলে টেক্সট ক্ল এবং সেল ফোন এলবো নামে আঙুল ও কব্জির সমস্যা দেখা যায়। ডাক্তারি পরিভাষায় এই সমস্যার নাম কিউবিটাল টানেল সিনড্রোম। অনবরত টেক্সট লিখলে বুড়ো আঙুল, তর্জনী এবং মধ্যমা প্রয়োজনের অতিরিক্ত ব্যবহার হয়। ফলে আঙুল দুটির কাছাকাছি থাকা স্নায়ুর উপরে বাড়তি চাপ পড়ে। এর জেরে প্রথমে আঙুল অসাড় লাগে। পরের দিকে ব্যথা হয়। এর থেকে রেহাই পেতে আঙুল স্ট্রেচ করতে পরামর্শ দিচ্ছেন চিকিৎসক।

এসএসকেএম হাসপাতালের মেডিসিনের চিকিৎসক অগ্নিভ মাইতি বলেন, যাদের উচ্চ রক্তচাপ আছে, তারা নাগাড়ে মুঠোফোনে কথা বললে ঘাড়ে ও কাঁধে ব্যথার সঙ্গে মাইগ্রেনের মাথা ব্যথার ঝুঁকি বাড়ে। টাচ ফোনে নাগাড়ে মেসেজ করলে বেশি বয়সে হাতের কব্জি ও আঙুলে ব্যথার আশঙ্কা খুব বেশি। দিনরাত মুঠোফোন সঙ্গে রাখেন এমনকি, বাথরুমে ও ঘুমনোর সময়েও মুঠোফোন সঙ্গে নিয়ে যান তাদের পেশি ও স্নায়ুতে অতিরিক্ত চাপ পড়ে। এতে স্ট্রেন ইনজ্যুরির ঝুঁকি বাড়ে। অর্থাৎ, যখন-তখন তীব্র ব্যথায় কষ্ট পেতে হয়। অগ্নিভ আরও জানালেন, এই সব সমস্যা প্রতিরোধের একমাত্র উপায় হলো মুঠোফোন ব্যবহারে মাত্রা টানা।

মুঠোফোন ব্যবহার কমানো না গেলেও কিছু নিয়ম মেনে চলা দরকার। স্পিকারে কথা বলা। সব আঙুল ঘুরিয়ে ফিরিয়ে ব্যবহার করা। টানা ফোন ব্যবহারের ফাঁকে হাত-আঙুল স্ট্রেচিং করে নেওয়ার মতো অভ্যাসও গড়ে তুলতে হবে। তবেই নিজেকে সুস্থ রাখা সম্ভব।

সম্পর্কিত বিষয়: