State Times Bangladesh

জেনে নিন আলুর খোসার উপকারিতা

অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশিত: ১৪:০৩, ১৯ মার্চ ২০২১

জেনে নিন আলুর খোসার উপকারিতা

প্রতীকী ছবি

বাজার থেকে আলু আনার পর আপনি প্রথমে কী করেন? নিশ্চিতভাবেই ধুয়ে নেন ভালো করে? তার পর তার স্থান হয় নির্দিষ্ট জায়গায়, তাই তো? রান্না বা খাওয়ার আগে বের করে খোসা ছাড়িয়ে নেন নিশ্চয়ই? ভুলটা কিন্তু এই শেষ ধাপে এসেই হচ্ছে! আলুর খোসায় থাকে ফোলেট, ম্যাগনেশিয়াম, পটাশিয়াম, ফসফরাস ও ভিটামিন সি।

আলুকে সবজির রাজা হিসাবে মনে করা হয়, কারণ এটি সব ধরণের সবজির সঙ্গে পুরোপুরি সামঞ্জস্য হয়। যে সমস্ত লোক সবুজ শাকসবজি খেতে পছন্দ করেন না, তারা কেবল আলু খেয়েই তাদের পুরো জীবন কাটিয়ে দেন। আলুর পরোটা বা যে কোনও আলুর রেসিপিতে খোসা ছাড়াই ব্যবহার করা হয়। তবে আপনি কি জানেন, যেটা আপনি ফেলে দিয়েছেন তা আসলে পুষ্টিকর উপাদানগুলির একটি স্টোর।

 

যেসব পুষ্টি রয়েছে: আলুর খোয়ায় রাইন্ড পটাসিয়ামের একটি দুর্দান্ত উত্স। আপনি যদি আলুর খোসা খান তবে এটি আপনার বিপাক বাড়াতে কাজ করবে। আলুর খোসাগুলিতে প্রচুর আয়রন থাকে যা লোহিত রক্তকণিকার কার্যকারিতা করতে সহায়তা করে। আপনি এতে প্রচুর ভিটামিন-বি ৩ পাবেন যা পুষ্টিগুলি ভেঙে দেয় এবং জ্বালানের মতো কাজ করতে সহায়তা করে। এগুলি ছাড়াও এটি আপনার কোষগুলিকে শারীরিক চাপ কাটিয়ে উঠতে সহায়তা করে। আলুর ত্বক আপনাকে ভালো পরিমাণে ফাইবার দেয়। ফাইবার ক্যানসার, হৃদরোগ এবং টাইপ 2 ডায়াবেটিসের ঝুঁকি হ্রাস করে।

নিয়ন্ত্রণ করে রক্তচাপ: আলুর খোসা হৃদযন্ত্রের কাজে সাহায্য করে। নিয়মিত আলুর খোসা খেলে তা পটাশিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম এবং ক্যালসিয়ামের মাধ্যমে রক্তচাপ সঠিক রাখার কাজ করে। ফলে দূরে থাকা যায় আরও অনেক অসুখ থেকে। সুস্থতার জন্য তাই খোসা না ফেলেই আলু রান্না করুন।

হাড় ভালো রাখে: হাড়ের নানা সমস্যায় ভোগেন অনেকে। আলু যদি খোসাসহ খান তবে এই সমস্যা থেকে দূরে থাকা সম্ভব হবে। আলুর খোসায় আছে খনিজ যা হাড় শক্ত ও সুস্থ রাখতে সাহায্য করে। এতে থাকা ম্যাগনেসিয়াম যা হাড় সুস্থ রাখে। আলুর খোসা হাড়ের ঘনত্ব বজায় রাখে এবং মেনোপজের পরে নারীর অস্টিওপরোসিসের ঝুঁকি কমাতে সাহায্য করে।

রক্তে কোলেস্টেরল কমায়: অ্যান্টিঅক্সিডেন্টস, পলিফেনলস এবং গ্লাইকোক্যালয়েডগুলির সাথে মিলিত আলুর খোসার মধ্যে পাওয়া উচ্চ ফাইবার কার্যকরভাবে দেহের কোলেস্টেরল হ্রাস করতে কার্যকরভাবে কাজ করে। আপনি যদি স্বাস্থ্যকর বাঁচতে চান তবে আপনার ডায়েটে খোসা দিয়ে আলু খাওয়া ভাল।

হৃদরোগের ঝুঁকি হ্রাস করে: যেহেতু আলুর খোসা একটি গুরুত্বপূর্ণ এবং অপরিহার্য খনিজ হিসাবে পটাসিয়ামে পূর্ণ, সেগুলি সেবন করা হার্ট অ্যাটাক এবং স্ট্রোকের ঝুঁকি হ্রাস করে। এর কারণ হ'ল রক্তচাপ কমাতে এবং হার্টকে সুস্থ রাখতে পটাসিয়াম গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। আলুর খোসাতে ওমেগা -৩ ফ্যাটি অ্যাসিডও থাকে।

রক্তে শর্করার মাত্রা বজায় রাখে: ডায়াবেটিসের কারণে আপনার কি ঘন ঘন খিদে পেতে পারে। তাই আপনার ডায়েটে আলুর খোসা থাকলে ভালো। এটি বারবার খাওয়ার অভ্যাস এড়াতে পারে। আলুর খোসার ফাইবারের উপাদান থাকা ছাড়াও অনেকগুলি প্রয়োজনীয় পুষ্টি উপাদান রয়েছে যা দেহে রক্তে শর্করার মাত্রা বাড়তে বাধা দেয়।

ত্বকের যত্নের জন্য: আলুর খোসা ত্বকের সমস্যার জন্য খুব ভালো। আপনি এটি আপনার ত্বককে সাদা করতে, পিম্পলস, ব্ল্যাকহেডস এবং হোয়াইটহেডস ব্যবহার করতে এবং অতিরিক্ত তেল হ্রাস করতে ব্যবহার করতে পারেন। আপনাকে যা করতে হবে তা হ'ল তুলো প্যাডের সাহায্যে ক্ষতিগ্রস্থ স্থানে আলুর রস প্রয়োগ করুন। এটি ১৫-২০ মিনিটের জন্য রাখুন এবং তারপরে হালকা গরম জলে ধুয়ে ফেলুন।

ডায়াবেটিস দূরে রাখে: বর্তমানে ডায়াবেটিস এক নীরব ঘাতকের নাম। এই ঘাতক থেকে দূরে থাকতে খেতে পারেন খোসাসহ আলু। খোসাসহ আলু খেলে তা দীর্ঘ সময় আপনার পেট ভরিয়ে রাখবে। আলুর খোসায় ফাইবার ছাড়াও আছে আরও অনেক গুরুত্বপূর্ণ উপাদান। যা রক্তে শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণে সাহায্য করে। ফলে দূরে থাকে ডায়াবেটিস।

সম্পর্কিত বিষয়: