State Times Bangladesh

যে কারণে খাদ্য তালিকায় রাখবেন বিট লবণ

লাইফস্টাইল ডেস্ক

প্রকাশিত: ০১:১০, ৫ ফেব্রুয়ারি ২০২১

যে কারণে খাদ্য তালিকায় রাখবেন বিট লবণ

বিট লবণ

সাধারণ লবণ খাওয়া স্বাস্থ্যের পক্ষে ভীষণ ক্ষতিকর, এই তথ্যটা নিশ্চয় অজানা নয়। তবুও বাড়তি লবণ খাওয়া হয় নানানভাবে। সালাদ, চাটনি কিংবা আচার তৈরিতে, টক জাতীয় কোন ফলের সঙ্গে অথবা কোন শরবত তৈরিতে প্রয়োজন হয় লবণ। প্রতিদিনের খাদ্য তালিকা থেকে ক্ষতিকর সাদা লবণ বাদ দিয়ে খেতে পারেন বিট লবণ।

এ লবনকে বলা হয়ে থাকে ‘রক সল্ট’ কিংবা ব্ল্যাক সল্ট’। যেখানে সাদা লবণে রয়েছে নানান ধরণের নেতিবাচক প্রভাব, সেখানে বিট লবণের রয়েছে নানান ধরণের স্বাস্থ্য উপকারিতা।

আয়ুর্বেদিক ওষুধে ব্যবহৃত হওয়া এই বিট লবণে আছে মিনারেল, কপার, আয়রন, পটাশিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম, ক্যালসিয়ামসহ আরও নানান ধরণের পুষ্টি উপাদান। এছাড়া বিট লবণে রয়েছে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট উপাদান।

ভারতের জীবনধারা ও স্বাস্থ্যবিষয়ক ওয়েবসাইট বোল্ডস্কাইয়ের এক প্রতিবেদনে বিট লবণের স্বাস্থ্য উপকারিতা সম্পর্কে জানানো হয়েছে। আসুন, এক ঝলকে বিট লবণের গুণাগুণ সম্পর্কে জেনে নিই—

অ্যাসিডিটি কমায়

বিট লবণ লিভারে পিত্ত উৎপাদনকে উদ্দীপিত করে এবং অ্যাসিডিটি ও ফোলাভাব নিয়ন্ত্রণে সহায়তা করে। এটি অ্যাসিডের মাত্রা নিয়ন্ত্রণে রাখতেও সাহায্য করে। বিট লবণ গ্যাসের সমস্যা থেকে দূরে রাখে ও পেট ফাঁপা কমায়।

হজমে সহায়তা

যদি আপনার হজমের সমস্যা থাকে, তাহলে বিট লবণ খেতে পারেন। বিট লবণ হজমপ্রক্রিয়ার উন্নতি করে।

রক্ত সঞ্চালনে সহায়তা

বিট লবণ শরীরে রক্ত ​​সঞ্চালন নিশ্চিত করে। এ ছাড়া রক্ত ​​জমাট বাঁধা ও কোলেস্টেরলের সমস্যা হ্রাস করে।

চুলের যত্নে

বিট লবণে থাকা মিনারেলস চুলের বৃদ্ধিতে সাহায্য করে। এ ছাড়া চুল পড়া কমায়। খুশকি রোধেও সাহায্য করে।

ত্বকের সুরক্ষায়

এই লবণ ত্বকের উপরিভাগের ময়লা ও মরা চামড়া দূর করতে প্রাকৃতিক স্ক্রাবার হিসেবে কাজ করে। এছাড়া, বন্ধ রোমকূপ খুলে ভেতরের ময়লা দূর করে ত্বকে প্রাকৃতিক উজ্জ্বলতা এনে দিতেও দারুণ কার্যকর বিট লবণ।