State Times Bangladesh

‘ধর্ষণে ব্যর্থ হয়ে’ চাচাতো বোনকে গলা কেটে হত্যা

অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশিত: ১১:৫৬, ৭ মে ২০২১

‘ধর্ষণে ব্যর্থ হয়ে’ চাচাতো বোনকে গলা কেটে হত্যা

ফেনীতে কিশোরীকে গলা কেটে হত্যা করা হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে ফেনী শহরতলীর মাইজবাড়িয়া গ্রামে কিশোরী বাড়ি থেকেই তার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। পরিবার ও পুলিশের ধারণা, ‘ধর্ষণে ব্যর্থ হয়ে’ মেয়েটিকে হত্যা করা হতে পারে।

নিহত তানিশা ইসলাম (১১) মাইজবাড়িয়া গ্রামের সৌদি আরব প্রবাসী শহীদুল ইসলামের মেয়ে। সে স্থানীয় একটি মাদ্রাসায় ষষ্ঠ শেণিতে পড়তো।

নিহতের পরিবার পুলিশ জানায়, বৃহস্পতিবার রাতে তানিশাকে ঘরে একা রেখে তার মা বোন পাশের বাড়িতে যান। রাত ১১টার দিকে ঘরে এসে তানিশাকে না পেয়ে তার মা তাকে ছাদে খুঁজতে যান। সময় ছাদের সিঁড়ি ঘরে পাওয়া যায় তানিশার গলা কাটা লাশ। ঘটনাস্থলে তানিশার জেঠাতো ভাই নিশানের জুতা পাওয়া যায়।

ফেনী থানার পরিদর্শক (তদন্ত) ওমর হায়দার বলেন, রাতেই জিঙ্গাসাবাদের জন্য নিশানকে আটক করা হয়। অষ্টম শ্রেণির ছাত্র নিশান ওই গ্রামের প্রয়াত আনোয়ার হোসেনের ছেলে। তবে তানিশার জেঠাতো ভাইকে আটক করলেও হত্যাকাণ্ডের কারণ সম্পর্কে প্রাথমিকভাবে কিছু জানায়নি পুলিশ।

তানিশার মা জানায়, বুধবার ছিল তানিশার জম্মদিন। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় তার জম্মদিন ঈদ উপলক্ষে উপহার হিসেবে তার জন্য নতুন লেহেঙ্গা কেনা হয়েছিল। কিন্তু তা নিয়ে আর আনন্দ করা হলো না তানিশার।

ফেনীর পুলিশ সুপার খোন্দকার নুরুন্নবী জানান, ঘটনার রহস্য উৎঘাটনে পুলিশ, ডিবি, র‌্যাব, পিবিআই সিআইডিসহ একাধিক দল মাঠে কাজ করছে।

সম্পর্কিত বিষয়: